• শিরোনাম

    অফিসে যাওয়া-আসার নিজস্ব বাস চলবে

    গণপরিবহন চলবে না, তবে অফিসে যাওয়া-আসার নিজস্ব বাস চলবে

    | বুধবার, ২৭ মে ২০২০

    মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস সংকটে চলমান সাধারণ ছুটি না বাড়ালেও যানবহন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এ তথ্য জানান।

    জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘যানবাহন বলতে গণপরিবহন না, স্টিমার-লঞ্চও না এবং রেলও চলবে না। শুধুমাত্র কর্মস্থলে যোগ দেওয়ার জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে জুটমিলের বাস আছে, বিভিন্ন বাস আছে, তারা চালু করবে তাদের নিজস্ব গাড়ি।’

    ‘বিমান কর্তৃপক্ষ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বিমান চালু করতে পারবেন স্বাস্থবিধি অনুযায়ী’, যোগ করেন ফরহাদ হোসেন।

    প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘৩১ মে থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞাগুলো আমাদের মানতে হবে। সেটি হচ্ছে, নিষেধাজ্ঞাকালে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যাওয়ার ব্যাপারে, এক জেলা থেকে আরেক জেলায় যাওয়ার ব্যাপারে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ থাকবে। সে ক্ষেত্রে প্রতিটি জেলার প্রবেশ পথ ও বহির্গমন পথে চেকপোস্টের ব্যবস্থা থাকবে। জেলা প্রশাসন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় এই নিয়ন্ত্রণ সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করবে।’

    প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ২৩ মার্চ সরকার প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। পরে দ্বিতীয় দফায় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত, তৃতীয় দফায় ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ও চতুর্থ দফায় ৫ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি বর্ধিত করা হয়। এরপরও পরিস্থিতির উন্নত না হওয়ায় পঞ্চম দফায় ১৬ মে এবং সর্বশেষ ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি বৃদ্ধি করে সরকার।

    ২৫ এপ্রিল একটি প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, জরুরি পরিষেবা প্রদানের সঙ্গে জড়িত সব মন্ত্রণালয়, বিভাগ এবং তাদের অধীনস্থ অফিসগুলো বর্ধিত সাধারণ ছুটির দিনে সীমিত আকারে খোলা থাকবে।

    সর্বশেষ গত ১৪ মে জারি করা প্রজ্ঞাপনে ১৭ মে থেকে যে সাধারণ ছুটি, শবে কদরের ছুটি, সাপ্তাহিক ছুটি এবং ঈদের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়, এখনো তা চলছে। সেই ছুটির মেয়াদ শেষ হবে আগামী ৩০ মে।

    করোনার সংক্রমণ রোধে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি রেল, সড়ক, নৌ ও বিমান যোগাযোগ বন্ধ রেখেছে সরকার।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত