• শিরোনাম

    ক্লিনিক থেকে দৌড়ে বেরিয়ে এলো তরুণী, গালে মুখে রক্ত

    অগ্রবাণী ডেস্ক | রবিবার, ১৯ মার্চ ২০১৭

    ক্লিনিক থেকে দৌড়ে বেরিয়ে এলো তরুণী, গালে মুখে রক্ত

    ঢাকার আশুলিয়ায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে চেকআপ করাতে গিয়ে চিকিৎসকের দ্বারা ধর্ষিত হয়েছেন এক নারী পোশাক শ্রমিক। অভিযুক্ত ওই চিকিৎসকের নাম রবীন্দ্র বিশ্বাস।

    শুক্রবার দুপুরে আশুলিয়া বাজার বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন প্যাসেন্ট কেয়ার হাসপাতালের আল্ট্রাসনোগ্রাম কক্ষে ওই নারীকে ধর্ষণ করেন ওই চিকিৎসক।

    এলাকার ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম জানান, শুক্রবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে ওই ক্লিনিকের সামনে দিয়ে জুমার নামাজে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ এক তরুণী (১৮) ওড়না ছাড়াই চিৎকার করে বাইরে বেরিয়ে এসে তার স্বামীকে জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

    এসময় এলাকার ব্যবসায়ী ও প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে জানান ওই তরুণী। তার মুখ, গাল ও বুকে রক্তাক্ত ক্ষতের চিহ্ন দেখা যায়। পরে ওই কক্ষে তার ওড়না পাওয়া যায়।

    জাহাঙ্গীর আলম আরও জানান, পরে বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান শাহাবউদ্দিন মাদবরকে জানানো হয়। তিনি ঘটনাস্থলে এসে ওই চিকিৎসককে মারধর করেন এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে ২৫ মার্চের মধ্যে পরিশোধের জন্যে একটি চেকে সই করিয়ে নেন।

    ঘটনার দিন থেকে ওই চিকিৎসক ক্লিনিকে আসছেন না এবং তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরটি চালু থাকলেও অপরিচিত নম্বরের ফোন ধরছেন না।

    ইউপি চেয়ারম্যান ওই চিকিৎসকের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকার চেক নিয়েছেন উল্লেখ করে ওই হাসপাতালের কর্মচারী দেলোয়ার হোসেন জানান, ডাক্তারকে মারধোর করায় তিনি অন্য একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

    এদিকে রবিবার দুপুরে প্যাসেন্ট কেয়ার হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, ওইদিন তিনি হাসপাতালে আসেননি, তবে বিষয়টি তিনি শুনেছেন। ওইদিন কর্তব্যরত চিকিৎসক সুমাইয়া জান্নাত ওই পোশাক শ্রমিক তরুণীকে আল্ট্রাসনোগ্রাম করার পরামর্শ দেন।

    চেয়ারম্যান শাহাবউদ্দিন মাদবর ফোনে বলেন, এ বিষয়ে ফয়সালা হয়ে গেছে।

    আশুলিয়া থানার ওসি মহসিনুল কাদির বলেন, ঘটনা সম্পর্কে ক্ষতিগ্রস্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    -এলএস

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত